নজরে ২১

২০২১ কে সামনে রেখে ২১ নুতন মুখ তৃণমূলের জেলা কমিটিতে, ব্যপক রদবদল ব্লক সভাপতি স্তরেও।

২০২১ এর বিধানসভা ভোটকে পাখির চোখ করে জেলা তৃণমূল তাদের সাংগঠনিক স্তরে ব্যপক রদবদল ঘটাল। জেলা কমিটিতে এল ২১জন নুতন মুখ।পাশাপাশি,জেলার ২২ ব্লকের ১৫ টিতে বদল হল ব্লক সভাপতি। এছাড়াও বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার যুব তৃণমূলেও জেলা কমিটি ও ব্লক সভাপতি স্তরেও ঘটানো হল রদবদল।

২০২১ কে সামনে রেখে ২১ নুতন মুখ তৃণমূলের জেলা কমিটিতে, ব্যপক রদবদল ব্লক সভাপতি স্তরেও।
X

#বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : বিধানসভা ভোটের আগে জেলার সাংগঠনিক কাঠামো ঢেলে সাজাল তৃণমূল কংগ্রেস। জেলা কমিটি থেকে ব্লক সভাপতি এমন কি দলের যুব শাখাতেও ব্যপক রদ বদল হল৷ ২০২১ কে পাখির চোখ করে একলপ্তে তৃণমূলের জেলা কমিটিতে এল ২১ নুতন মুখ। জেলার ২২ টি ব্লক সভাপতির মধ্যে ১৫ টি ব্লকের সভাপতি বদল হল। আর জেলার বাঁকুড়া ১ নাম্বার ব্লক, বড়জোড়া, ওন্দা, ছাতনা ইন্দপুর খাতাড়া,হিড়বাধ এই সাতটি ব্লকে পুরাতন সভাপতিদেরই ফের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

সূত্রের খবর, টিম পিকে জেলার ব্লক ও জেলা কমিটির নেতা,ব্লক সভাপতি,এমনকি দলের যুব শাখার পদাধিকারীদের পারফরম্যান্স, পাবলিক ইমেজ,ব্যবহার, সাংগঠনিক ক্ষমতা,রাজনৈতিক কর্মসুচী রূপায়ণের দক্ষতা,দূর্নীতির অভিযোগ এবং সোস্যাল সাইটে জনপ্রিয়তার মতো বিভিন্ন দিক খতিয়ে দেখে মূল্যায়ন করে দলের শীর্ষ স্তরে রিপোর্ট দেয়। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতেই এই রদবদল। চুড়ান্ত তালিকাতে অনেক নেতা বাদও পড়েছেন জেলা কমিট থেকে।ব্লক সভাপতি পদেও ১৫ জন নুতন মুখ এনে দলে ফ্রেশ অক্সিজেন সাপ্লাই বাড়ানোর কৌশল নিয়েছেন টিম পিকে এমন চর্চা শুরু হয়েগেছে দলের অন্দরেই।


যদিও, ব্লক সভাপতি থেকে অপসারনের পর তাদের সাথে দলের সংঘাত এড়াতে জেলা কমিটিতে তাদের এনে পদ দেওয়া হয়েছে। যদিও সেই পদ সহ সভাপতি, সম্পাদক বা কমিটি সদস্যের মতো নাম মাত্র পদ বলেই মনে করছেন ব্লক সভাপতি থেকে অপসারিত নেতারা। তবে, তারা এটা ভালো ভাবে টের পাচ্ছেন যে তাদের পাশে জন সমর্থন কমে যাওয়া বা তাদের সাংগঠনিক দূর্বলতার জন্যই তাদের পদ হারাতে হয়েছে। ফলে তারা প্রকাশ্যে কোন ক্ষোভ বিক্ষোভের পথে না হেঁটে দলের সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত বলে মেনে নিয়েছেন বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

আজ দুপুরে জেলা তৃণমূল ভবনে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি শ্যামল সাঁতরা মুল দলের এবং বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার যুব তৃণমূল সভাপতি যথাক্রমে রাজ কুমার সিংহ অর্চিতা বিদ এই সাংগঠনিক রদবদলের আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষণা করেন।অন্যান দের মধ্যে দলের চেয়ারম্যান শুভাশিস বটব্যাল, তিন পর্যবেক্ষক মৃত্যুঞ্জয় মুর্মূ, গুরুপদ মেটে, সুব্রত দরিপা প্রমুখ সাংবাদিক বৈঠকে উপস্থিত থাকলেও অরুপ চক্রবর্তী, অরুপ খাঁ, মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত, দিলীপ আগরওয়াল,শম্পা দরিপার মতো অনেকেই মঞ্চে দেখা যায় নি।

অন্যদিকে, নুতন কমিটি ঘোষনার আগে যুব তৃণমূল নেতা ও জিলা সভাপতি শ্যামল সাঁতরার মধ্যে সোস্যাল সাইটে পোস্ট নিয়ে বিতর্ককে কেন্দ্র করে দলে নানা গুঞ্জন শোনা যায়। যদিও এসব ছোট খাটো বিষয় ছাপিয়ে গিয়ে নুতন জেলা কমিটি নুতন উদ্যোগে জেলায় ২১ এর প্রস্তুতির কাজ কার্যত এদিন থেকেই শুরু করে দেওয়ার ওপর জোর দিলেন।

পুরো তালিকা দেখতে এখানে ক্লিক করুন👇https://s.docworkspace.com/d/AABJq73D0MI5ufDPj96dFA

এখন দেখার, এই জেলার নয়া তৃণমূল ব্রিগেড ২১ এর লড়াইয়ে জিৎ হাসিল করতে পারে কিনা? সে দিকেই নজর রইল নেতা থেকে আমজনতা সবার।

দেখুন 🎦 ভিডিও। 👇


Next Story