নজরে ২১

সমস্যা জানাতে দিদির হাতে চিঠি দেওয়ার কাতর আর্জি,শেষে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে গোছা,গোছা চিঠি সংগ্রহ হেলিপ্যাডে।

নিজেদের লেখা চিঠির মাধ্যমে দিদির হাতে সরাসরি তুলে দেবেন। এই আশায় দূর, দুরান্ত থেকে এসে ভীড় জমিয়েছিলেন তারা। এদের মধ্যে রাজ্যে ফেরা পরিয়ায়ী শ্রমিক যেমন আছেন,তেমনি বেকার যুবক চাকরী প্রার্থীও রয়েছেন, ছিলেন অনেক মহিলারাও। তারাই খাতড়ায় হেলিপ্যাডে মুখ্যমন্ত্রী নামার সাথে,সাথে তার হাতে চিঠি তুলে দেওয়ার আর্জি জানাতে থাকেন দিদিকে। আর সেই কথা কানে পোঁছতেই দিদি সাথে সাথে এই চিঠি সংগ্রহ করার নির্দেশ দেন আধিকারিকদের। চিঠি সংগ্রহ শুরু করা মাত্র গোছা,গোছা চিঠিতে ভরে যায়।

সমস্যা জানাতে দিদির হাতে চিঠি দেওয়ার কাতর আর্জি,শেষে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে গোছা,গোছা চিঠি সংগ্রহ হেলিপ্যাডে।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : নিজেদের হাতে লেখা চিঠিতে সমস্যার কথা লিখে তা মুখ্যমন্ত্রীর হাতে তুলে দেওয়ার জন্য ভীড় জমিয়েছিলেন জঙ্গলমহলের জনতারা। মনে সংশয় ছিল তারা সেই সুযোগ পাবেন কিনা? তবে কপাল ঠুকেই বেরিয়ে পড়ে ছিলেন সকলে। তবে তাদের সিংহবাগকেই নিরাশ হতে হয়নি।


হ্যাঁ, শেষে খুশী হয়েই বাড়ী ফিরলেন তারা। নিজেদের অভাব, অভিযোগ, সমস্যার কথা নিজেদের লেখা চিঠির মাধ্যমে দিদির হাতে সরাসরি তুলে দেবেন। এই আশায় দূর, দুরান্ত থেকে এসে ভীড় জমিয়েছিলেন তারা।

এদের মধ্যে রাজ্যে ফেরা পরিয়ায়ী শ্রমিক যেমন আছেন,তেমনি বেকার যুবক চাকরী প্রার্থীও রয়েছেন, ছিলেন অনেক মহিলারাও। তারাই খাতড়ায় হেলিপ্যাডে মুখ্যমন্ত্রী নামার সাথে,সাথে তার হাতে চিঠি তুলে দেওয়ার আর্জি জানাতে থাকেন দিদিকে।

আর সেই কথা কানে পোঁছতেই দিদি সাথে সাথে এই চিঠি সংগ্রহ করার নির্দেশ দেন আধিকারিকদের। চিঠি সংগ্রহ শুরু করা মাত্র গোছা,গোছা চিঠিতে ভরে যায়। আসলে জঙ্গল মহলের এই মানুষজনের বিশ্বাস, দিদির হাতে চিঠি পোঁছে দিতে পারলেই সমাধান হবে সমস্যার। তাই রানীবাঁধের বেঠুয়ালা থেকে, সারেঙ্গার বেজডাঙ্গা এমন দূর,দুরান্তের গ্রাম থেকেও চিঠি নিয়ে হাজির হয়ে ছিলেন অনেকেই।

যারা কাছাকাছি পৌঁছতে পেরে ছিলেন তারা তাদের চিঠি তুলে দিতে পারলেও দূরে দাঁড়িয়ে থাকাদের অবশ্য চিঠি দেওয়ার সুযোগ মেলেনি। তবে,তারা হাল ছাড়ার পাত্র নন। আবার, কাল সিধু -কানু স্টেডিয়ামে আর এক প্রস্ত চেষ্টা করবেন তাদের চিঠি দিদির হাতে তুলে দিতে।


এনারা স্থানীয় জন প্রতিনিধি, প্রশাসনিক কর্তাদের কাছে গিয়ে সুরাহা পাননি। তাই তারা দিদিকে কাছে পেয়ে তাদের সমস্যা সরাসরি দিদিকে জানিয়ে সমাধান চাইছেন।সেই আশাতেই তাদের এই প্রয়াস। পাশাপাশি, ভরসা দিদির ওপর। কল্পতরু হয়ে যদি তিনি মিটিয়ে দেন তাদের এই অভাব,অভিযোগ, কিংবা সমস্যা। সেই আশা নিয়েই এখন বুক বাঁধা শুরু জঙ্গলমহলের এই প্রান্তিক মানুষজনের।

দেখুন 🎦 ভিডিও। 👇




Next Story