বিয়ের আসরে তুতো ভাইয়ের ভোজালির কোপে মৃত্যু যুবকের,বাঁকুড়ার মৌলাডাঙ্গায় চাঞ্চল্য!

বিয়ের আসরে তুতো ভাইয়ের  ভোজালির কোপে মৃত্যু যুবকের,বাঁকুড়ার মৌলাডাঙ্গায় চাঞ্চল্য!
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : বিয়ে বাড়ীর প্রীতিভোজের রাত। আনন্দ আর হৈ, হুল্লোড় চলছিল পুরোদমে। এরই মধ্যে নেমে এল বিষাদের সুর। তুতো ভাইয়ের মায়ের হাতে নাকি লাঠি পেটা করেছে দাদা সুপ্রিয়। মায়ের মুখে এমন নালিশ শুনেই সুপ্রিয়কে আচমকা ভোজালি দিয়ে কোপায় তুতোভাই দেবাংশু। সাথে,সাথে আর্তনাদ করতে,করতে লুটিয়ে পড়ে সুপ্রিয়।


আত্মীয় স্বজন,প্রতিবেশীরা টের পেয়ে ছুটে এসে দেখেন সুপ্রিয়র বুক,পেট,মাথায় এলোপাথাড়ি ভোজালির কোপ। তড়িঘড়ি বাঁকুড়া মেডিকেলে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা সুপ্রিয়কে মৃত বলে ঘোষণা করেন। বাঁকুড়া সদর থানায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তদন্ত শুরু করার পাশাপাশি অভিযুক্ত দেবাংশুকে আটক করেছে ।

মঙ্গলবার রাতে সুপ্রিয়'র কাকার ছেলের বিয়ের প্রীতিভোজের অনুষ্ঠান ছিল। সেখানে ভাইয়ে,ভাইয়ে ঝগড়াঝাটি হলেও তা মিটেয়েও দেন আত্মীয় স্বজনরা। কিন্তু পরে দেবাংশু ভোজালির এলোপাথাড়ি কোপে মেরে ফেলে তুতো দাদা সুপ্রিয় চট্টরাজকে। সুপ্রিয় পেশায় ঠীকাদার ছিলেন। এবং এলাকায় মিশুকে ও পরউপকারি হিসেবে পরিচিতি ছিল। এমন এক তরতাজা যুবক কে হারিয়ে শোকে কাতর গোটা গ্রাম। এখন তারা অভিযুক্ত দেবাংশুর চরম শাস্তির দাবী তুলছেন। এমনকি আত্মীয় স্বজনদের দাবী দেবাংশু সব সময় মাদকাসক্ত থাকত। এবং এলাকায় প্রায় অশান্তি করত। তার জেরে প্রতিবেশীরাও জেরবার হতেন। দেবাংশুর কাকা স্বরূপ চট্টরাজও ভাইপোর চরম শাস্তির দাবী করেছেন।

এদিকে,অভিযুক্ত দেবাংশুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশ।

👁️দেখুন 🎦 ভিডিও। 👇


Next Story