শিশু পাচার কাণ্ডে উদ্ধার ৫ শিশুর খোঁজখবর নিতে বাঁকুড়ায় রাজ্য শিশু সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সন অন্যনা চক্রবর্তী।

শিশু পাচার কাণ্ডে উদ্ধার ৫ শিশুর খোঁজখবর নিতে বাঁকুড়ায় রাজ্য শিশু সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সন অন্যনা চক্রবর্তী।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : দেশের আর পাঁচটা শিশু পাচারের ঘটনার থেকে একে বারেই আলাদা বাঁকুড়ার ঘটনা। এই ঘটনা অন্যতম বিরল বলেই মনে করা হচ্ছে। কারণ অভাব বা লোভে পড়ে মা কিংবা বাবার শিশু বিক্রির নজীর থাকলেও একজন মা তার পাঁচ পাঁচটা শিশুকে বিক্রি করে দিচ্ছেন এমন ঘটনার নজির খুব একটা নেই। পাশাপাশি, একটি কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ টাকার লোভে এভাবে শিশু পাচার চক্রের কিং পিন হতে পারেন এমনটাও সচরাচর ভাবা যায় না। ছোটোতেই বাবাকে হারিয়েছে এই পাঁচ শিশু।তাই মায়ের ওপর এদের নির্ভরতার পাশাপাশি ভালোবাসারও দাবী একটু বেশীই ছিল। দুর্গাপুরের কাদারোডের বাসিন্দা এই পাঁচ শিশুর মা রিয়া বাদ্যকর তার মায়া,মমতাকে বিসর্জন দিয়ে শিশুর দিদা ও মামাকে সাথে নিয়ে মোটা টাকার বিনিময়ে এভাবে তাদের বেচে দেবে তা ভাবা যায়না! এমনকি তা মানবিকতার লজ্জা!

তার থেকেও বড়ো সমস্যা এই পাঁচ শিশুর মানসিক যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেওয়া এবং তাদের সুরক্ষিত রাখা। এই অবস্থায় তাই ৫ শিশুকে সুরক্ষিত ও নিরাপদ হেফাজতে রাখতে তাদের ঠাঁই হয়েছে হোমে। আজ এই হোমে গিয়ে এই পাঁচ শিশুর খোঁজ খবর নেন রাজ্যের শিশু সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সন অন্যনা চক্রবর্তী।


তার সাথে ছিলেন অভিনেত্রী সুদেষ্ণা রায়, সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রমুখ। এছাড়া বাঁকুড়া সার্কিট হাউসে জেলার পুলিশ ও প্রশাসনিক আধিকারিকদের সাথে বৈঠকও করেন অন্যান্য চক্রবর্তী। তিনি সাংবাদিক বৈঠকে এই শিশু পাচার কাণ্ডে একজন কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ের প্রিন্সিপাল যুক্ত থাকায় উষ্মাও প্রকাশ করেন। এবং এই ঘটনায় অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী তোলেন।

তিনি বলেন, এই পরিস্থিতিতে পাঁচ শিশুর সুরক্ষা রক্ষা থেকে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে কমিশন।তাই শিশু গুলি কেমন আছে। সব সুযোগ সুবিধা তারা পাচ্ছে কিনা এসব খতিয়ে দেখতেই আজ জেলায় আসে কমিশনের প্রতিনিধি দল বলেও জানান তিনি।

👁️দেখুন 🎦 ভিডিও। 👇


Next Story