করোনা আবহে বিক্রি নেই চোরাই জিনিসের,তাই টাকা পেতে চুরির সাইকেল বন্ধক,ধরে গাছে বাঁধতেই সব কবুল চোরের।

করোনা আবহে বিক্রি নেই চোরাই জিনিসের,তাই টাকা পেতে চুরির সাইকেল বন্ধক,ধরে গাছে বাঁধতেই সব কবুল চোরের।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : করোনা আবহে বিক্রি নেই চোরাই জিনিস পত্রের। তাই চুরি করে হাতিয়ে নেওয়া সাইকেল বন্ধক দিয়ে বিকল্প উপায়ে টাকা জোগাড় করে দিব্যি চলছিল। কিন্তু বন্ধক দেওয়া সাইকেলের সুত্র ধরে সাইকেল চোরকে চিহ্ণিত করে ফেললেন এলাকার বাদিন্দারা। এরপরই তাকে ধরে এলাকায় একটি গাছে বেঁধে চলে জেরা। জেরায় জেরবার হয়ে শেষে চুরির কথা কবুল করে শঙ্কু ডোম নামে ওই যুবক। এলাকায় চোর ধরা পড়ার খবর ছড়িয়ে পড়তেই ভীড় জমে যায় উৎসাহী জনতার। চাপে পড়ে একে,একে সাইকেল চুরির কথা স্বীকার করতে থাকে সে।সম্প্রতি সে তিনটি সাইকেল চুরি করেছে বলে প্রাাাথমিক ভাবে জানা গেছে।সে শহরের রামপুর এলাকার একটি আশ্রম থেকে সাইকেল চুরির কথা নিজে মুুুখে স্বীকার করে।

গাছে বেঁধে খবর দেওয়া হয় বাঁকুড়া সদর থানায়। থানা থেকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে এই যুবককে ধরে নিয়ে যায়। প্রসঙ্গত, শহরের ফাঁসিডাঙ্গা এলাকায় ইদানীং কয়েকটি সাইকেল চুরি যায়। স্থানীয় একটি আশ্রম থেকে চুরি যাওয়া একটি সাইকেল অন্যের কাছে দেখতে পান এক ব্যক্তি।এর পরই চুরির সাইকেল বন্ধকীর ঘটনা ফাঁস হয়। এবং সেই সুত্র ধরেই ধরা পড়ে যায় সাইকেল চোর।

এদিকে,এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশ।তারও দেখছে এই সাইকেল চুরির সাথে আর কোন র‍্যাকেট আছে কিনা। পাশাপাশি, যেখানে বন্ধক দিয়েছিল সেই ব্যক্তিকেও জিজ্ঞাসাবাদ করাও হতে পারে ঘটনার তদন্তের জন্য বলে সূত্রের খবর।

দেখুন 🎦 ভিডিও।


Next Story