"দলকে নিয়ে ব্যবসা করলেই ছুটি"- দুই জেলা সভাপতিকে পাশে বসিয়ে সম্বর্ধনা সভায় হুঙ্কার অরুপ চক্রবর্তীর।

দলকে নিয়ে ব্যবসা করলেই ছুটি- দুই জেলা সভাপতিকে পাশে বসিয়ে সম্বর্ধনা সভায় হুঙ্কার অরুপ চক্রবর্তীর।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : এবার তৃণমূল দলকে ভাঙ্গিয়ে ব্যবসা করা বা, দলের পদের অপব্যবহার করে দুনাম্বারি কারবারে যুক্ত থাকার ঘটনায় রাশ টানতে কড়া হচ্ছে জেলা তৃণমূল। কোন নেতা বা কর্মীর এমন কাজে যুক্ত ঘটনা নজরে পড়লে আর রেওয়াত করা হবে না। দলের তরফে তা স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন জেলার বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা তথা তালডাংরার বিধায়ক এবং বাঁকুড়া জিলা পরিষদের মেন্টর অরুপ চক্রবর্তী।


এদিন জেলা তৃণমূল ভবনে বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার নব নির্বাচিত কোর কমটির চেয়ারম্যান,সভাপতি ও অন্যন্য শাখা সংগঠনর জেলা সভাপতিদের সম্বর্ধনা সভায় দুই সাংগঠনিক জেলা সভাপতি দিব্যেন্দু সিংহ মহাপাত্র ও অলোক মুখোপাধ্যায়কে পাশে বসিয়ে কার্যত হুঙ্কার দিয়ে সকলকে সতর্ক করেন অরুপ বাবু। তিনি,বলেন,দলকে আর নরম হলে চলবে না। কঠিন পথে এবার দল চলবে৷ দলকে নিয়ে ব্যবসা করা যাবে না।কেও যদি ভাবে তৃণমূলও করব আর দুনাম্বারি ব্যবসা করব!তাহলেই ছুটি হয়ে যাবে।

অরুপ বাবু আরও বলেন,দল করা বড়ো কঠিন পঞ্চায়েত হেরে গেলে লোকসভাটাও হেরে যাব৷ তাই গ্রাম থেকে সংগঠন গড়ার ডাক দেন তিনি। পাশাপাশি বিধানসভায় কারা দলের হয়ে লড়াই করেছিল আর কারা বিজেপির সাথে আঁতাত করে প্রাচীরে বসেছিল তাও রেফারির মতো বাঁশি হাতে নজর রেখেছে দল তাও স্পষ্ট করে দেন তিনি। এবং এই প্রাচীরা বসারা এখন গোলে বল মারার চেষ্টা করলেই অফ সাইডের বাঁশি বাজবে তার ইঙ্গিতও এদিন দিয়ে রাখেন। প্রসঙ্গত,এতদিন তৃণমূল ভবনে খানিকটা রাখঢাক করে নিয়ম রক্ষার বক্তব্য রাখতে দেখা গেছে অরুপ বাবুকে। কিন্তু জেলার এই নুতন কোর কমিটি গঠনের পর তাকে আজ তাকে পুরানো মেজাজে বক্তব্য রাখতে দেখে দলেরই একাংশ করতালি দিয়ে অরুপ বাবুর বক্তব্যকে সমর্থন করতে দেখা যায়।

পাশাপাশি বিদায়ী জেলা সভাপতি শ্যামল সাঁতরাও এদিন নতুন দুই সভাপতিকে বরন করার পাশাপাশি আলিঙ্গনে আবদ্ধ হয়ে একসাথে দলের হয়ে কাজ করার বার্তা দেন। এখন দেখার এই নতুন টিম তৃণমূল জেলার তিন পুরসভার ভোটে দলকে কতখানি সাফল্য এনে দিতে পারে? সেদিকেই নজর রইল জেলার রাজনৈতিক মহলের।

👁️দেখুন 🎦ভিডিও। 👇



Next Story