রাতে বাড়ীতে থাকতেন না গৃহকর্তা,ভাদুলে ফাঁকা বাড়ীতে হানা দিয়ে গয়নাগাটি,বাসনপত্র ও দামী জিনিস সাবাড় করল চোরের দল।

রাতে বাড়ীতে থাকতেন না গৃহকর্তা,ভাদুলে ফাঁকা বাড়ীতে হানা দিয়ে গয়নাগাটি,বাসনপত্র ও দামী জিনিস সাবাড় করল চোরের দল।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : কোভিড আবহে রুজি- রুটির টান বাড়ছে। ফলে জেলায় বাড়ছে চুরির ঘটনাও।রাতে বাড়ীতে কেও না থাকার সুযোগে ফাঁকা ঘরে হানা দিয়ে গয়নাগাটি,বাসনপত্র, দামী শাড়ী ও অন্যন্য মূল্যবান জিনিস নিয়ে চম্পট দিল চোরের দল। বাঁকুড়া সদর থানার ভাদুলের রক্ষাকালী মন্দির সংলগ্ন এলাকায় এই ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।


জানাগেছে, বাড়ীর মূল দরজার তালা ভেঙ্গে এই বাড়িতে ঢোকে তারা। বাড়ীর দরজার তালা ভাঙ্গা দেখে আজ সকালে চুরির ঘটনা টের পান বাড়ীর এক কর্তা। এরপর খবর দেওয়া হয় বাঁকুড়া সদর থানায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে চুরির ঘটনার তদন্ত শুরু করে পুলিশ। বাড়ীর অন্যতম কর্তা শেখর সরকার জানান,এই বাড়ীতে রাতে কেও থাকত না। সেই সুযোগে এই চুরির ঘটনা ঘটে৷

তারা যে বাড়ীতে থাকত না তা নজরে পড়েছিল চোরের দলের। এবং বর্ষার শুনসান রাতকে কাজে লাগিয়ে নির্বিঘ্নে চুরির কাজ হাসিল করে তারা। প্রসঙ্গত,দিন কয়েক আগে বাঁকুড়া শহরের কাটজুড়িডাঙ্গায় একটি গয়না দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাতির দুদিনের মাথায় বাঁকুড়া পুলিশ পুরো ডাকাত দলকে ধরে ফেলে এবং ঝাড়খন্ড থেকে চুরি হওয়া সোনার গয়নাও উদ্ধার করে। এবার ভসদুলের এই চুরির ঘটনার কিনারা করতেও জোর কদমে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। এবং দিন কয়েকের মধ্যে এই চুরির ঘটনারও কিনারা করে ফেলবে বাঁকুড়া পুলিশ, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।এবং সেদিকেই নজর রয়েছে ভাদুবাসীরও।

👁️দেখুন 🎦 ভিডিও। 👇



Next Story