শহরে রবীনস্ট্রিট কান্ডের ছায়া,মৃত মেয়ের দেহ আগলে রেখেছিলেন মা,দুর্গন্ধ ছড়াতেই পুলিশ এসে উদ্ধার করে মৃতদেহ।

স্থানীয় মানুষের দাবী, মা ও মেয়ে দুজনেরই মানসিক ভারসাম্যের ঘাটতি ছিল। এই কদিন মেয়েকে বাড়ীর বাইরে নজরে না পড়ায়,পাড়ার লোকের জিজ্ঞাসায় উষাদেবী জানান তার মেয়ে অসুস্থ। এর পর তার বাড়ীর পাশ দিয়ে গেলেই পচা দুর্গন্ধ টের পাওয়ায় এলাকার মানুষের সন্দেহ হয়।

শহরে রবীনস্ট্রিট কান্ডের ছায়া,মৃত মেয়ের দেহ আগলে রেখেছিলেন মা,দুর্গন্ধ ছড়াতেই পুলিশ এসে উদ্ধার করে মৃতদেহ।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : বাঁকুড়া শহরে রবীনস্ট্রিট কান্ডের ছায়া! শহরের কুচকুচিয়া মাঠপাড়া একালায় মৃত মেয়ের দেহ আগলে রাখলেন মা। অবশেষে, ওই পরিবারের এক আত্মীয়ের তৎপরতায় স্থানীয় মানুষ বাড়ীতে ঢুকে দেখেন খাটের মধ্যে মেয়ে কৃষ্ণা বন্দ্যোপাধ্যায় (২৭)পচা গলা মৃতদেহ আগলে আছেন মা উষা দেবী। আর ঘর ময় দুর্গন্ধ ছেয়ে গিয়েছে। সাথে,সাথে খবর দেওয়া হয় বাঁকুড়া সদর থানায়। পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়।


পাশাপাশি মৃত যুবতীর মাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করে। তবে,স্থানীয় মানুষের দাবী, মা ও মেয়ে দুজনেরই মানসিক ভারসাম্যের ঘাটতি ছিল। তারা নিজেরা,নিজেদের মতো করেই থাকতেন। খুব একটা পাড়ার লোকজনের সাথে মিশতেন না।তবে এই কদিন মেয়েকে বাড়ীর বাইরে নজরে না পড়ায় পাড়ার লোক জিজ্ঞাসায় উষাদেবী জানান তার মেয়ে অসুস্থ।

এদিকে গত তিন চার দিন ধরে তার বাড়ীর পাশ দিয়ে গেলেই পচা দুর্গন্ধ টের পাওয়ায় এলাকার মানুষের সন্দেহ হয়। তখন তাদের এক আত্মীয়ের মমধ্যস্থতায় বাড়ীতে ঢুকলেই পুরো ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। উষা দেবী তার স্বামীকে হারিয়ে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েন। এবার মেয়েকেও হারালেন। তবে মেয়ে কৃষ্ণা কি অসুখে ভুগছিল তা বলতে পারেননি উষা দেবী। এদিকে, পুলিশ একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা দায়ের করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। পুলিশের দাবী,ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলেই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে৷

👁️দেখুন 🎦ভিডিও। 👇



Next Story