বাই সাইকেলে চড়ে, মশার লার্ভা নিধন ও নির্মল পরিবেশের প্রচারে, বস্তিতে,বস্তিতে অভিযান জেলাশাসকের।

বাই সাইকেলে চড়ে, মশার লার্ভা নিধন ও নির্মল পরিবেশের প্রচারে, বস্তিতে,বস্তিতে অভিযান জেলাশাসকের।
X

বাঁকুড়া২৪X৭প্রতিবেদন : কাক ভোরে রেসিং বাই সাইকেলে করে নির্মল পরিবেশের প্রচার এবং মশার লার্ভার নিধনে বস্তিতে, বস্তিতে ঢুঁ মারলেন জেলাশাসক!

আজ থেকে চলছে পতঙ্গ বাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণের সচেতনতা সপ্তাহ। তার প্রথম দিনেই গায়ে গোলাপী স্পোর্টস গেঞ্জী, আর ট্র্যাক স্যুট পরে সাইকেল চড়ে শহরের পুর এলাকার জেল রোড, কেঠার ডাঙ্গা,রেল পাড়, প্রভৃতি এলাকার বস্তিগুলোয় হানা দেন জেলাশাসক। সরজমিনে খতিয়ে দেখেন কোথাও মশার লার্ভা আছে কিনা? সেই মতো তা নিধনেরও নিদান দেন তিনি। বস্তি সংলগ্ন মজে যাওয়া পুকুর সংস্কার ও শূকর পালনে নিয়ন্ত্রণ আনতে পুরসভাকে কড়া নির্দেশও দেন জেলাশাসক। তিনি নির্মল পরিবেশ গড়ে তুলতে পুরসভাকেও আরও সক্রিয় হতে বলেন।

সাত সকালেই এভাবে খোদ জেলা শসকের এই ভূমিকা দেখে ঘুম ভাঙ্গা চোখে খানিক অবাকও হন বস্তিবাসীরা। তবে, জেলাশাসক নিজেই খোলসা করে বিষয়গুলো বোঝাতেই, বস্তীবাসীরা সাধুবাদ জানান তাঁকে।

এদিন জেলাশাসকের সাথে ছিলেন বাঁকুড়া পুরসভার চেয়ারম্যান মহা প্রসাদ সেনগুপ্ত,উপ পৌর প্রধান দিলীপ আগরওয়াল সহ পুর সভার অন্যান্য আধিকারিকরা।

জেলাশাসক ডাঃ উমাশঙ্কর এস বলেন, জেলা প্রশাসন ও পুরসভা পতঙ্গ বাহিত রোগ ঠেকাতে এমন অভিযান চালাবে। মজে যাওয়া পুকুরের মালিকরা তা সংস্কার না করলে তাদের মোটা অংকের জরিমানাও করবে প্রশাসন। এবং মশার লার্ভার আঁতুড় ঘর নিধনে জল জমা বন্ধে বস্তী বাসীদেরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

এক পলকে ভিডিওটি দেখতে নীচে ক্লিক করুন।[playlist type="video" ids="673"]

Next Story